1. admin-1@vinnabarta.com : admin : admin
  2. admin-2@vinnabarta.com : Rumana Jaman : Rumana Jaman
  3. admin-3@vinnabarta.com : Saidul Islam : Saidul Islam
  4. bddesignhost@gmail.com : admin : jashim sarkar
  5. newspost2@vinnabarta.com : ebrahim-News :
  6. vinnabarta@gmail.com : admin_naim :
  7. admin_pial@vinnabarta.com : admin_pial :
শিরোনাম :
বিশ্বকাপের আগে যুক্তরাষ্ট্রের কাছে লজ্জার হার বাংলাদেশের দ্বিতীয় ধাপের উপজেলা নির্বাচনে চেয়ারম্যান হলেন যারা ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি শ্রাবণের উপর ছাত্রলীগের হামলার অভিযোগ ইচ্ছাকৃত ঋণ খেলাপির তথ্য সিআইবিতে দেওয়ার নির্দেশ দুই প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ, নিহত ১ রাষ্ট্রপতির শিল্প উন্নয়ন পুরস্কার পাচ্ছে ২০ প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশে দুর্নীতি প্রকাশে সহায়তাকারীদের যুক্তরাষ্ট্রের সাধুবাদ বর্তমান ইসি রাজদরবারের গোপাল ভাঁড়ে পরিণত হয়েছে : সালাম জেনারেল আজিজের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা ভিসানীতির প্রয়োগ নয়: কাদের ভোটদানে নিরুৎসাহিত করায় জনগণ ভোট দিতে আসছেন না: সিইসি

স্পেনে মৃতের সংখ্যা ১০ হাজার ছাড়াল

ভিন্নবার্তা প্রতিবেদক
  • প্রকাশের সময় : বৃহস্পতিবার, ২ এপ্রিল, ২০২০ ৬:৫৭ pm

ইতালির পর করোনার থাবায় লণ্ডভণ্ড ইউরোপের আরেক দেশ স্পেন। আক্রান্তের সংখ্যা লাফ দিয়ে বেড়েই চলেছে। গত ২৪ ঘণ্টায় সেখানে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ৮৬৪ জনের প্রাণহানি ঘটেছে। একদিনে এই রেকর্ড সংখ্যক করোনা রোগীর মৃত্যুর মধ্য দিয়ে স্পেনে মৃতের সংখ্যা ১০ হাজার ছাড়িয়েছে।

করোনায় প্রাণহানি ও অসুস্থদের হিসাব রাখা আন্তর্জাতিক সংস্থা ওর্য়াল্ডওমিটারের দেয়া পরিসংখ্যান অনুযায়ী, স্পেনে এ পর্যন্ত করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ১ লাখ ১০ হাজার ২৩৮ জন। এর মধ্যে মারা গেছেন ১০ হাজার ৩ জন। সুস্থ্ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ২৬ হাজার ৭৪৩ জন।

ভাইরাসটি প্রতিরোধে ইতিমধ্যে দেশটি লকডাউন করা হয়েছে। লকডাউন ভেঙে রাস্তায় বের হলে ধরপাকড়ের শিকার হচ্ছেন নাগরিকরা। জরিমানাও গুণতে হচ্ছে অনেককে।

রাজধানী মাদ্রিদের রাস্তা এখন জনশূন্য। রেস্তোরাঁ, দোকান, শপিংমল সবই বন্ধ রয়েছে। ফুটবলের শহর কাতালানে নেই কোনো বলে পা ছোঁয়ার শব্দ। স্টেডিয়ামগুলো খাঁ খাঁ করছে।

এদিকে, দ্রুত গতিতে করোনা রোগীর বৃদ্ধিতে স্পেনের স্বাস্থ্যব্যবস্থা অতিরিক্ত চাপে পড়ে গেছে। চিকিৎসাসামগ্রীরও অভাব দেখা দিয়েছে।

স্পেনের হেলথ ইমার্জেন্সির প্রধান ফারনান্দো সিমন বলেন, আমরা চূড়ান্ত সীমায় পৌঁছে গেছি কিনা, সেটি এখানকার মূল বিষয় নয়। মনে হচ্ছে যেন আমরা তেমন অবস্থায়ই রয়েছি। সব রোগীর চিকিৎসা ও হাসপাতালে ভর্তিতে স্বাস্থ্যব্যবস্থার সক্ষমতা নিশ্চিত করাই এখন সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ইস্যু।

প্রসঙ্গত, এ পর্যন্ত বিশ্বব্যাপী ৯ লাখ ৫৪ হাজার ৩১৮ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। এতে মারা গেছেন ৪৮ হাজার ৫৫৩ জন। সুস্থ্ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন, ২ লাখ ২ হাজার ৯১৩ জন।

ভিন্নবার্তা/এমএসআই



আরো




মাসিক আর্কাইভ