1. [email protected] : admin : jashim sarkar
  2. [email protected] : admin_naim :
  3. [email protected] : admin_pial :
  4. [email protected] : admin : admin
  5. [email protected] : Rumana Jaman : Rumana Jaman
  6. [email protected] : Saidul Islam : Saidul Islam
সুপার সাইক্লোনে পরিণত তকতে, বাড়িয়ে চলেছে গতিবেগ |ভিন্নবার্তা

সুপার সাইক্লোনে পরিণত তকতে, বাড়িয়ে চলেছে গতিবেগ

vinnabarta.com
  • প্রকাশ : সোমবার, ১৭ মে, ২০২১, ০৯:৪২ অপরাহ্ন

ভারতে আছড়ে পড়তে চলেছে ঘূর্ণিঝড় তকতে। এরই মধ্যে ঘূর্ণিঝড়টি সুপার সাইক্লোনে পরিণত হয়েছে। ঘূর্ণিঝড় তকতে আজ সোমবার ভেরি সিভিয়ার সাইক্লোনিক স্টর্মে পরিণত হয়েছে। ফলে এটি আরও ভয়াবহ রূপ নিয়ে গুজরাট উপকূলে আছড়ে পড়তে চলেছে।

ভারতের কেন্দ্রীয় আবহাওয়া দপ্তর বা আইএমডির মহাপরিচালক এম মহাপাত্র বলেন, সোমবার সকাল থেকে খুব দ্রুত গতিতে শক্তি বাড়াতে শুরু করেছে তকতে। এটি অত্যন্ত মারাত্মক ঘূর্ণিঝড় হিসেবে আরব সাগর দিয়ে ধেয়ে আসছে। উপকূলে আছড়ে পড়ার পর এটা আরও তীব্রতর হয়ে উঠবে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন আবহাওয়াবিদরা।

আইএমডি তাদের পূর্বাভাসে জনিয়েছে, তকতে মারাত্মক ঘূর্ণিঝড়ের রূপ নিয়ে মঙ্গলবার ভোর নাগাদ গুজরাট উপকূলে আছড়ে পড়বে। সেই সময় ঘূর্ণিঝড়টির সর্বোচ্চ গতিবেগ থাকবে প্রতি ঘণ্টায় ১৮০ থেকে ১৯০ কিলোমিটার, যা ২১০ কিলোমিটার পর্যন্তও উঠতে পারে। সোমবার রাতেই পোর বন্দরের কাছে পৌঁছে যাবে ঘূর্ণিঝড় তকতে।

আবহাওয়াবিদদের মতে, যেভাবে শক্তি বাড়াচ্ছে তকতে তার গতিবেগ নিয়ে আগাম অনুমান করা মুশকিল হয়ে পড়েছে। ক্রমশ ঘূর্ণিঝড়টির গতিবেগ বৃদ্ধি পাচ্ছে।

আবহাওয়া দপ্তরের মতে, ঘূর্ণিঝড় তকতে দুই দশকের মধ্যে সবচেয়ে ভয়ংকর রূপ নিতে চলেছে। তকতের প্রভাবে সমুদ্র ফুঁসতে শুরু করেছে।

আবহাওয়া দপ্তর জানিয়েছে, সমুদ্রে তিন থেকে ছয় মিটার পর্যন্ত উঁচু ঢেউ হতে পারে। সমুদ্রতটে ৯ থেকে ১৮ ফুট পর্যন্ত উঁচু ঢেউ আছড়ে পড়বে। এই মারাত্মক ঝড়ের প্রভাবে উঁচু ঢেউয়ের সঙ্গে ভারি বৃষ্টির জেরে সমুদ্র উপকুলে বন্যা পরিস্থিতির তৈরি হতে পারে।

এদিকে ঘূর্ণিঝড় তকতের প্রভাবে কার্যত তাণ্ডব শুরু হয়েছে মুম্বাই জুড়ে। মহারাষ্ট্রের বিভিন্ন এলাকায় এরই মধ্যেই ভয়াবহ বৃষ্টি শুরু হয়ে গেছে। শহরের বিভিন্ন জায়গায় পানি জমতে শুরু করেছে। ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে মুম্বাই বিমানবন্দর সাময়িক বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

এদিকে ঝড়ের দাপটে আজ মহারাষ্ট্রের রায়গড়ে একজনের মৃত্যু হয়েছে। মহারাষ্ট্রের পরিস্থিতি নিয়ে খোঁজ নিতে মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরেকে ফোন করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।

তকতের দাপট থেকে বাঁচতে সব রকম প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছে মহারাষ্ট্র। প্রবল বর্ষণ শুরু হয়েছে মুম্বাই, নাসিক, রায়গড়সহ একাধিক জায়গায়। বেশ কিছু বাড়িঘর ভেঙে পড়েছে। উপকূলবর্তী এলাকা থেকে প্রায় এক লাখ মানুষকে নিরাপদ জায়গায় সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। বিপর্যয়ের আশঙ্কায় বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে আজ ও আগামীকালের করোনা টিকাদানের কর্মসূচি।

মুম্বাইয়ে এই মুহূর্তে সব উড়ান বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। সকাল থেকেই বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে ওরলি সিলিঙ্ক। সমুদ্রের ওপর দিয়ে এই সেতু যাওয়ায় নিরাপত্তার কারণে বন্ধ রাখা হয়েছে সেতু। বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে লোকাল ট্রেন পরিষেবাও। একাধিক জায়গায় লোকাল ট্রেনের লাইনে পানি জমে গেছে। এদিকে পরিস্থিতি মোকাবিলায় বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনীকে প্রস্তুত রাখা হয়েছে।

এদিকে স্থলভাগে আঘাত হানার আগে আরও শক্তি বাড়াতে শুরু করেছে ঘূর্ণিঝড় তকতে। তীব্র তার গতি। আগে থেকেই জানান দিতে শুরু করেছে। কেরালা ও কর্ণাটকের প্রবল বর্ষণ জানান দিয়েছে কতটা তীব্র হতে চলেছে সে।
ভিন্নবার্তা ডটকম/এন

আরো পড়ুন

মাসিক আর্কাইভ

© All rights reserved © 2021 vinnabarta.com
Customized By Design Host BD