শিরোনাম

সাভারে ব্যবসায়ীকে তুলে নিয়ে মারধরের অভিযোগ

উপজেলা প্রতিবেদক, সাভার

সাভারে ব্যবসায়িক দ্বন্দের জের ধরে এক ব্যবসায়ীকে তুলে নিয়ে বেধরক মারধর করেছে সন্ত্রাসীরা। এঘটনায় থানায় অভিযোগ করলেও পুলিশ আইনানুগ কোন ব্যবস্থা গ্রহণে করেনি বলে অভিযোগ ভুক্তভোগীর পরিবারের।

সোমবার (২২ অক্টোবর) রাতে সাভার গেন্ডা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

মারধরের শিকার ব্যবসায়ী তমাল আহম্মেদ (৩৫) মুন্সীগঞ্জ জেলার শ্রীনগর থানার সমাজপুর গ্রামের মুক্তার উদ্দিন আহম্মেদ এর ছেলে। তিনি গেন্ডা পুকুরপাড় এলাকার ফাতেমা বেগমের বাড়িতে পরিবার নিয়ে ভাড়া থেকে কাঁচামালের আড়তে ব্যবসা করেন।

ভুক্তভোগী তমাল আহম্মেদ বলেন, ব্যবসায়িক পূর্ব শত্রুতার জের ধরে দীর্ঘ দিন ধরে তাকে প্রাণনাষের হুমকি দিয়ে আসছে গেন্ডা এলাকার চিহ্নিত সন্ত্রাসী আরিফ খান ওরফে টুন্ডা আরিফ ও তার সন্ত্রাসী বাহিনী। এরই জেরে সোমবার রাতে বাসায় ফেরার পথে গেন্ডা এলাকায় সাভার পৌর সভার সামনে তার পথরোধ করে টুন্ডা আরিফ বাহিনীর সজিব ও আলামিন।

পরে তাকে মারধর করে জোরপূর্বক একটি মাইক্রোবাসে তুলে পৌর সভার পিছনে একটি নির্জন অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে যায়। সেখানে পূর্বে থেকে অবস্থানরত টুন্ডা আরিফ ও তার সঙ্গীয় সজিব, আলামিন, সুমন, তানজিল ও জসিমসহ ৭-৮ জন তাকে এলোপাথারি চরথাপ্পর ও কিলঘুষি মারতে থাকে। এক পর্যায়ে সন্ত্রাসী আরিফ তাকে লোহার পাইপ দিয়ে বেধরক পেটাতে থাকে। এসময় ইট দিয়েও তার শরীরে আঘাত করতে থাকে সন্ত্রাসীরা।

পরে তার চিৎকারে আশপাশের লোকজন চলে আসলে ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায় টুন্ডা আরিফ ও তার সন্ত্রাসী বাহিনী। পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে সাভার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন।

ভুক্তভোগীর বোন ফারজানা আহম্মেদ মৌ অভিযোগ করেন, সন্ত্রাসী আরিফের মাদক সেবন ও চাঁদাবাজিসহ বিভিন্ন সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের কারণে এলাকার মানুষ অতিষ্ট। কিন্তু ভয়ে তার বিরুদ্ধে কেউ মুখ খুলতে রাজি হয় না।

এসময় তিনি ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, গতকাল তার ভাইকে মারধরের ঘটনায় তিনি থানায় অভিযোগ করলেও পুলিশ এখন পর্যন্ত অভিযুক্ত সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে কোন আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করছে না।

এব্যাপারে সাভার মডেল থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মলয় কুমার সাহা হেয়ালিপনার স্বরে বলেন, ‘ঘটনাস্থলে রাত্রে বেলা গেছিলাম কোন লোকজন পাই নাই।’

আইআই/শিরোনাম বিডি

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন
আরো পড়ুুন