1. [email protected] : admin : jashim sarkar
  2. [email protected] : admin_naim :
  3. [email protected] : admin_pial :
  4. [email protected] : admin : admin
  5. [email protected] : Rumana Jaman : Rumana Jaman
  6. [email protected] : Saidul Islam : Saidul Islam
সহকারী শিক্ষককে মারধর করে গা ঢাকা দিয়েছেন প্রধান শিক্ষক |ভিন্নবার্তা

সহকারী শিক্ষককে মারধর করে গা ঢাকা দিয়েছেন প্রধান শিক্ষক

vinnabarta.com
  • প্রকাশ : শুক্রবার, ২৯ নভেম্বর, ২০১৯, ০৪:৩৪ অপরাহ্ন

ময়মনসিংহের ত্রিশাল উপজেলার কোনাবাড়ি চরপাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক আব্দুল আজিজকে পিটিয়ে নিজে বাড়ি ছাড়া হয়েছেন প্রধান শিক্ষক রফিকুল ইসলাম।

এ ঘটনায় এলাকা জুড়ে চলছে নানা সমালোচনা। দুই শিক্ষকের মারামারির কারণে ব্যাহত হচ্ছে স্কুলের শিক্ষার্থীদের পড়াশোনা।

এ দিকে দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার দাবি জানিয়ে স্থানীয়রা জানান, গত (২৩ নভেম্বর) শনিবার স্কুলে যাওয়ার পথে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে কোনাবাড়ি চরপাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক আব্দুল আজিজকে পিটিয়ে আহত করে একই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রফিকুল ইসলাম ও তার লোকজন।

আব্দুল আজিজকে মারধর থেকে রক্ষা করতে গিয়ে আহত হয় তার ছেলেসহ বেশ কয়েকজন। আহত আব্দুল আজিজকে ত্রিশাল উপজেলার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও তার ছেলেকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

আহত চিকিৎসাধীন সহকারী শিক্ষক আব্দুল আজিজ জানান, প্রায় দুমাস আগে কোনাবাড়ি চরপাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রফিকুল ইসলামের মেয়ের জামাতার কাছ থেকে ১৩ শতাংশ জমি ক্রয় করেন। জমির টাকা পরিশোধ করার পরেও ক্রয়কৃত জমির দখল ছাড় ছিল না রফিকুল ইসলাম ও তার লোকজন। এ নিয়ে সালিশ বৈঠকও হয়েছে।

এরই জেরে রফিকুল ইসলাম এবং তার লোকজন গাছের ডাল ও লাঠি দিয়ে তাকে পিটিয়েছে। বাড়িতেও হামলা চালিয়ে ভাঙচুর করেছে। এ ঘটনার সুষ্ঠু বিচারের দাবি জানান আব্দুল আজিজ।

কোনাবাড়ি চরপাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পাঁচজন শিক্ষকের মধ্যে আহত হয়ে চিকিৎসাধীন রয়েছেন আব্দুল আজিজ। নিজ প্রতিষ্ঠানের সহকারী শিক্ষককে মারধর করে গা ঢাকা দিয়েছেন প্রধান শিক্ষক। ফলে তিনজন শিক্ষক দিয়ে চলছে স্কুলের কার্যক্রম। ব্যাহত হচ্ছে শিক্ষার্থীদের পড়াশোনা।

অভিযোগের বিষয়ে প্রধান শিক্ষকের স্কুল ও বাড়িতে গিয়ে তাকে পাওয়া যায়নি। মুঠোফোনটিও বন্ধ রয়েছে। তালাবদ্ধ অবস্থায় রয়েছে তার বসতঘরটি।

তার প্রতিবেশীরা জানান, মারধরের ঘটনার পর থেকেই প্রধান শিক্ষকসহ তার পরিবারের লোকজন ঘরে তালা দিয়ে স্বজনদের বাড়িতে বেড়াতে গিয়েছে। তাদের দাবি এ ঘটনায় দুপক্ষেরই দোষ রয়েছে।

উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার নূর মোহাম্মদ বলেন, জমি সংক্রান্ত বিরোধে দুই শিক্ষকের মধ্যে মারামারির ঘটনা ঘটেছে। বিষয়টি নিয়ে মামলাও হয়েছে। শিক্ষার্থীদের পড়াশোনার বিষয়টি মাথায় রেখে আমাদের পক্ষ থেকে যা করণীয় তাই করব।

ত্রিশাল থানার ওসি আজিজুল হক বলেন, জমি সংক্রান্ত বিরোধে মারধরের ঘটনায় দুটি মামলা হয়েছে। আমরা ঘটনাটি তদন্ত করে দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেব।

এনআই/শিরোনাম বিডি

আরো পড়ুন

মাসিক আর্কাইভ

© All rights reserved © 2021 vinnabarta.com
Customized By Design Host BD