1. [email protected] : admin : jashim sarkar
  2. [email protected] : admin_naim :
  3. [email protected] : admin_pial :
  4. [email protected] : admin : admin
  5. [email protected] : Rumana Jaman : Rumana Jaman
  6. [email protected] : Saidul Islam : Saidul Islam
রাজউক-বাড়িওয়ালাদের দূষছেন নগরবাসী - |ভিন্নবার্তা
রাজধানীতে পার্কিং সংকট

রাজউক-বাড়িওয়ালাদের দূষছেন নগরবাসী

শফিকুল ইসলাম :
  • প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ১৩ জানুয়ারী, ২০২২, ০৬:৫৭ pm

রাজধানীর চলছে চরম পার্কিং সমস্যা। দীর্ঘদিন ধরে পার্কিং সমস্যা থাকলেও তা সমাধানে রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ রাজউক কার্যকর কোন ব্যবস্থা নিচ্ছে না। আর এ সুযোগে বাড়িওয়ালারাও পার্কিং ব্যবস্থা না করে ইতিমধ্যে অধিকাংশ বাড়ি নির্মাণ করেছেন। ফলে এরজন্য রাজউক ও বাড়িওয়ালাদের দূষছেন নগরবাসী।

অভিযোগ রয়েছে, রাজধানীর অধিকাংশ ভবনে পার্কিং ব্যবস্থা নেই। আর যে কয়টির পার্কিং আছে সেগুলোরও অধিকাংশ স্থানে রুম স্থাপন করে ভাড়া দেয়া হচ্ছে। ফলে চরম পার্কিং সংকটে রয়েছে নগরবাসী। যেসব পার্কিংয়ে রুম স্থাপন করে ভাড়া দেয়া হচ্ছে সেসব বাড়িওয়াদের বিরুদ্ধে মাঝেমধ্যে অভিযান পরিচালনা করা হলেও তাতে একটা সুফল আসছে না।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, রাজউকের আওতাধীন ভবন নির্মাণ করার অন্যতম শর্ত পার্কিং স্থান রাখা বাধ্যতামূলক। কিন্তু কর্তৃপক্ষের নির্দেশ অমান্য করে ভবনের পার্কিং স্থানে রুম বানিয়ে ভাড়া দিচ্ছে অধিকাংশ বাড়ি মালিক। ফলে এদের বিরুদ্ধে জোড়ালোভাবে ব্যবস্থা নেয়ার উদ্যোগ নিচ্ছে রাজউক।

জানা গেছে, রাজউক থেকে ভবনের কার পার্কিং স্থানে বসবাস না করার নির্দেশ থাকলেও তা মানছে না অধিকাংশ বাড়ি মালিক। এ বিষয়ে অনেক আগেই বিভিন্ন জাতীয় দৈনিক পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছিল রাজউক কর্তৃপক্ষ। বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছিল ভবনের পার্কিং স্থানে বসবাস করা যাবে না। যারা পার্কিং স্থানে রুম করে ভাড়া দিচ্ছে তা অপসারণ করে পার্কিং স্থান বহাল না রাখলে সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে। কিন্তু তাতে একটা সুফল আসেনি।

অভিযোগ রয়েছে, নকশা বহিভূর্ত ভবন নির্মাণের ক্ষেত্রেও সংশ্লিষ্টরা রাজউকের আইন লঙ্গন করছে। ভবন নির্মাণকালে রাজউকের অনুমোদিত নকশার লঙ্ঘন করে নিয়মবহির্ভূত স্থাপনা তুলেছেন রাজধানীর অনেক ভবন মালিক ও আবাসন ব্যবসায়ীরা। এসব স্থাপনা নির্মাণ করতে গিয়ে নিজ সুবিধামতো নকশারও পরিবর্তন করা হচ্ছে। এছাড়া, রাজধানীর বিভিন্ন ডেভেলপার প্রতিষ্ঠানও অনুমোদনের অতিরিক্ত উচ্চতার ভবন নির্মাণ করছে বলেও অভিযোগ উঠছে। তবে নিয়ম অমান্য করে যারা এ ধরনের ভবন নির্মাণ করছে তাদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে রাজউক জানিয়েছে। ইতিমধ্যে একাধিক ভবন মালিকদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। পর্যায়ক্রমে অন্যান্য ভবন মালিকদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেয়া হবে ।

রাজউকের সংশ্লিষ্ট বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, নক্শা অমান্য করে নির্মাণ করা ভবন মালিকদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে গিয়ে রাজউকের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা নানা প্রতিবন্ধকতায় পড়ছেন। রাজউকের বিভিন্ন উচ্ছেদ অভিযানে গেলে প্রভাব খাটিয়ে তা আটকে দেয়ার চেষ্টার পাশাপাশি আইনের আশ্রয়ও নিচ্ছে অনেকে। বিধি অনুযায়ী এসব ক্ষেত্রে রাজউকের ব্যবস্থা গ্রহণের এখতিয়ার থাকলেও, তা রিট করে স্থগিত রাখার ঘটনাও ঘটছে।

রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা যায়, গড়ে তোলা হয়েছে একের পর এক বহুতল ভবন। এসব ভবনের পার্কিং ব্যবস্থা থাকলেও তাতে দেয়াল দিয়ে বসবাসসহ নানা কার্যক্রম পরিচালনা করছে মালিকরা। অন্যদিকে নিয়ম অমান্য করেও নির্মাণ করা হচ্ছে বহুতল ভবন। যদিও নিয়ন্ত্রক সংস্থা হিসেবে বিষয়টি দেখভালের দায়িত্ব রাজউকেরই। নির্মাণ খাতসংশ্লিষ্টরা বলছেন, ভূমিকম্পের ক্ষতি থেকে অবকাঠামো রক্ষায় নকশা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে। এদিকে, বিভিন্ন স্থাপনা নির্মাণে রাজউকের অনুমোদিত নকশা অনুসরণ হচ্ছে কিনা, তা নিয়মিত তদারকি না করায় দেখা যায়, অধিকাংশ ডেভেলপার প্রতিষ্ঠান স্থাপনা নির্মাণের সময় যথাযথ প্রক্রিয়ায় অনুমোদন নিচ্ছে, কিন্তু সে অনুযায়ী স্থাপনা নির্মাণ করছে না। অনুমোদিত নকশা অনুযায়ী স্থাপনা নির্মাণের পর তা বসবাসের উপযুক্ত কিনা, তা পরীক্ষা করে ভবন মালিকদের অকুপেন্সি সার্টিফিকেট নামে একটি ছাড়পত্র নেয়ার বিধান রয়েছে। কিন্তু অধিকাংশ ক্ষেত্রেই তা মানা হচ্ছে না।

আবার প্রায় সব স্থাপনায়ই কোনো না কোনো ত্রুটি থাকতে পারে, এ অজুহাতে এ ছাড়পত্র নেয়ার বিষয়টিতেও খুব একটা জোর দিচ্ছে না রাজউক। তবে এবার আর দোষীদের বিরুদ্ধে ছাড় না দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে রাজউক। এরই ধারাবহিকতায় ভবন মালিকদের বিরুদ্ধে অভিযান পরিচালনা করে জেল জরিমানা দেয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছেন, রাজউকের চেয়ারম্যান এবিএম আমিন উল্লাহ নূরী। তিনি বলেন, কোনো ভবনে রাজউকের অনুমোদনের বাইরে গিয়ে স্থাপনা নির্মাণ করলে বা আবাসিকের অনুমোদন নিয়ে বাণিজ্যিক হিসেবে ব্যবহার করলে, সেগুলোয় আমরা নিয়মিত উচ্ছেদ অভিযান চালাচ্ছি। এটি আমাদের নিয়মিত কার্যক্রমেরই অংশ। আমরা যেখানেই অভিযোগ পাব সেখানেই অভিযান পরিচালনা করব। এ বিষয়ে আর কাউকে ছাড় দেয়া হবে না।

ভিন্নবার্তা/এমএসআই

আরো পড়ুন

মাসিক আর্কাইভ

© All rights reserved © 2021 vinnabarta.com
Customized By Design Host BD