1. [email protected] : admin : jashim sarkar
  2. [email protected] : admin_naim :
  3. [email protected] : admin_pial :
  4. [email protected] : admin : admin
  5. [email protected] : Rumana Jaman : Rumana Jaman
  6. [email protected] : Saidul Islam : Saidul Islam
মসজিদের পার্কিং এলাকায় এখন শুধু লাশ |ভিন্নবার্তা
যুক্তরাজ্য

মসজিদের পার্কিং এলাকায় এখন শুধু লাশ

vinnabarta.com
  • প্রকাশ : সোমবার, ২৭ এপ্রিল, ২০২০, ০৮:০৭ অপরাহ্ন

যুক্তরাজ্যের বার্মিংহামের ঘামকল শরিফ কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের গাড়ি রাখার জায়গায় অস্থায়ী মর্গ গড়ে তোলা হয়েছে৷ করোনার কারণে এখন মসজিদ বন্ধ আছে৷ বার্মিংহামের স্মল হিথ এলাকায় প্রধানত দক্ষিণ এশিয়া থেকে যাওয়া অভিবাসীরা বাস করেন৷ সেখানেই এই মসজিদটি অবস্থিত৷

মসজিদের ট্রাস্টি মোহামেদ জাহিদ মর্গ স্থাপনের সঙ্গে জড়িত ছিলেন৷ বার্তা সংস্থা এপিকে তিনি জানান, করোনার আগে মসজিদে সপ্তাহে এক বা দুটি জানাজা হতো৷ আর এখন গত কয়েক সপ্তাহ ধরে দিনে পাঁচ-ছয়টি জানাজা হচ্ছে৷

পাশের গ্রিন লেন মসজিদের সালিম আহমেদ জানান, তাদের মসজিদে বছরে প্রায় ২৫ বার জানাজা হয়৷ কিন্তু গত তিন সপ্তাহে প্রতিদিন পাঁচটি করে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়েছে৷

ব্রিটেনে এখন পর্যন্ত ২০ হাজার সাতশ’র বেশি মানুষ করোনায় মারা গেছেন৷

পরিসংখ্যান বলছে, ১৭ এপ্রিলের আগে ব্রিটেনে মারা যাওয়াদের ১৬ শতাংশ কৃষ্ণাঙ্গ, এশীয় কিংবা সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের (বিএএমই) মানুষ ছিলেন৷ যুক্তরাজ্যে মোট জনসংখ্য়ার প্রায় ১৪ শতাংশ ঐ গোত্রের অন্তর্গত৷

এছাড়া ইনটেন্সিভ কেয়ার ন্যাশনাল অডিট অ্যান্ড রিসার্চ বলছে, যুক্তরাজ্য কোভিড-১৯ এ আক্রান্ত হয়ে ইনটেন্সিভ কেয়ারে থাকা রোগীদের এক-তৃতীয়াংশ অ-শ্বেতাঙ্গ৷ মারা যাওয়া একশ’র বেশি স্বাস্থ্যকর্মী বিএএমই গোষ্ঠীর বলেও জানিয়েছে সংস্থাটি৷

সংখ্যালঘুদের উপর করোনার এমন আঘাতের বিষয়টি তদন্ত করে দেখতে বলেছে সরকার৷

লেস্টার বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক কমলেশ খুন্তি বলছেন, সংখ্যালঘু ব্রাইটনদের অনেকে একটি ছোট এলাকায় একসঙ্গে অনেকে বসবাস করেন৷ এছাড়া তারা করোনায় আক্রান্ত হওয়ার উচ্চ ঝুঁকিতে থাকা পেশা, যেমন চিকিৎসক, নার্স, ট্যাক্সি চালক, বাসকর্মী হিসেবে কাজ করেন৷

বেডফোর্ডশায়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক গার্চ রানঢাওয়া এ প্রসঙ্গে বর্ণবাদের বিষয়টি তুলে এনেছেন৷ তাঁর অভিযোগ, সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের নার্সরা অন্যদের তুলনায় কম সুযোগ-সুবিধা পান৷ যেমন, এই সময়ে তারা হয়ত সবার পরে পিপিই পেয়েছেন কিংবা অন্যদের চেয়ে তাদেরকে কোভিড-১৯ রোগীদের কাছে বেশি পাঠানো হয়েছে৷

মসজিদ বন্ধ
করোনার কারণে বার্মিংহামের মসজিদ যেমন বন্ধ রয়েছে তেমনি এশিয়ার কয়েকটি দেশেও মুসল্লিদের মসজিদে যেতে নিষেধ করা হয়েছে৷ যেমন বিশ্বের সবচেয়ে বেশি মুসলমান বাস করা ইন্দোনেশিয়ার প্রধান ইস্তিকবাল মসজিদ থেকে বাসায় নামাজ পড়ার অনুরোধ করা হয়েছে৷

পাকিস্তানের করাচির অন্যতম বড় মসজিদ ফাইজান-ই-মদিনাতে যেন কেউ ঢুকতে না পারে সেজন্য পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে৷ ভারতের নতুন দিল্লির জামে মসজিদে রমজানের প্রথম দিনের মাগরিবের নামাজে মাত্র পাঁচজনকে নামাজ পড়তে দেয়া হয়েছে৷

আরো পড়ুন

মাসিক আর্কাইভ

© All rights reserved © 2021 vinnabarta.com
Customized By Design Host BD