1. [email protected] : admin : jashim sarkar
  2. [email protected] : admin_naim :
  3. [email protected] : admin_pial :
  4. [email protected] : admin : admin
  5. [email protected] : Rumana Jaman : Rumana Jaman
  6. [email protected] : Saidul Islam : Saidul Islam
ভোলায় বসতঘরে হামলা-ভাংচুর-লুটপাট, ২ পুলিশসহ জনতার হাতে আটক ৩ |ভিন্নবার্তা
শিরোনাম:
স্থায়ীভাবে বন্ধ ৩ হাজার কিন্ডারগার্টেন, বেকার ৬০ শতাংশ শিক্ষক-কর্মচারী মঙ্গল গ্রহে রকেট পাঠানোর বাজেটে হচ্ছে প্রভাসের ছবি দুর্নীতি-অনিয়মের বিরুদ্ধে শেখ হাসিনার সরকার অত্যন্ত কঠোর: কাদের বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান মীর নাছির সস্ত্রীক করোনাক্রান্ত ক্যারিবীয় লিগে দল কিনল মোস্তাফিজের রাজস্থান গ্রামে যাওয়া শ্রমিকদের এখনই কর্মস্থলে না ফেরার অনুরোধ বিজিএমইএর হুমকি, সাবেক এমপি’র বিরুদ্ধে মামলা করেও বিচার না পেয়ে সংবাদ সম্মেলন গরীব দেশগুলোকে টিকা সহায়তা দিতে ৪ সংস্থার ওয়েবসাইট চালু স্কুলে কুরআন শিক্ষা বাধ্যতামূলক করল পাঞ্জাব সরকার টিকা নিয়েও করোনায় আক্রান্ত সাবেক মন্ত্রী ধীরেন্দ্র দেবনাথ শম্ভু

ভোলায় বসতঘরে হামলা-ভাংচুর-লুটপাট, ২ পুলিশসহ জনতার হাতে আটক ৩

vinnabarta.com
  • প্রকাশ : শনিবার, ১ অগাস্ট, ২০২০, ১১:১৯ পূর্বাহ্ন

ভোলার চরফ্যাশনের শশীভূষণ থানা পুলিশের বিরুদ্ধে বাসা বাড়িতে হামলা ভাংচুর ও লুটপাটের অভিযোগ উঠেছে। শুক্রবার ৩১ জুলাই সন্ধ্যায় চরকলমী ইউনিয়নের আনজুরহাট বাজারের পুরাতন গলিতে আমিনুল ইসলাম তুহিন হাওলাদারের বাসা বাড়িতে এই হামলা ও লুটপাটের ঘটনা ঘটে।

হামলা ও লুটপাটের সময় গৃহকর্ত্রী সাহারা বেগমের ডাক-চিৎকারে বাজারের শতাধিক লেঅক ওই বাসাটি ঘিরে ফেলে এবং হামালাকারীদের মধ্যে দুই পুলিশ সদস্যসহ ৩ জনকে আটক করেন। সংবাদ পেয়ে সন্ধ্যার পর শশীভূষণ থানার ওসি রফিকুল ইসলামের নেতৃত্বে পুলিশ সদস্যরা জনতার হাতে আটক ৩ জনকে থানায় নিয়ে আসেন।

এ ঘটনায় গৃহকর্ত্রী সাহারা বেগম বাদী হয়ে ৩ জনকে আসামি করে শশীভূষণ থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

সহকারী পুলিশ সুপার (চরফ্যাশন সার্কেল) শেখ সাব্বির হোসেন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

বাসার মালিক তুহিন হাওলাদার ভিন্নবার্তা ডটকমকে জানান, ঘটনার সময় তিনি বাসায় ছিলেন না। বাসায় তার স্ত্রী ও ছোট মেয়ে ছিলেন। স্ত্রী সাহারা রোজা ছিলেন। সন্ধ্যায় ইফতারের প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন। এসময় তার বাসার দরজা নক করার শব্দ পেয়ে স্ত্রী সাহারা ঘরের দরজা খুলে দিলে অপরিচিত ৭/৮ জন লোক ঘরে ঢুকে ঘরের আসবাবপত্র, আলমারি, সুকেস ভাংচুর ও লুটপাট শুরু করেন। স্ত্রী আতংকিত হয়ে পড়েন এবং হামলাকারীদেরকে বাধা সৃষ্টি করে তিনি ব্যর্থ হন। পরে তিনি ঘরের পিছনের দরজা দিয়ে বের হয়ে ডাক-চিৎকার দেন। তার ডাক-চিৎকার শুনে বাজারের শতাধিক লোক বাসাটি ঘিরে ফেলেন।

এসময় বিপদ আঁচ করতে পেরে হামলাকারীরা পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন, এসময় কয়েকজন পালিয়ে গেলেও স্থানীয় জনগণ ৩ হামলাকারীকে আটক করে রাখেন।

পরে থানায় খরব দিলে শশীভূষণ থানার ওসি রফিকুল ইসলাম সংঙ্গীয় ফোর্সসহ ঘটনাস্থলে আসেন। পুলিশ আসার পর আমরা জানতে পারি আটক ৩ জনের মধ্যে ১ জন শশীভূষণ থানায় কর্মরত সহকারী উপ- পুলিশ পরিদর্শক ফেরদাউস আরেকজন একই থানায় কর্মরত কনস্টেবল সোহেল। তৃতীয় ব্যক্তি হচ্ছেন রসুলপুর ইউনিয়নের বখাটে যুবক লিমন। হামলাকারীরা পালিয়ে যাওয়ার সময় নগদ টাকা ও স্বর্ণ-অলংকার লুট করে নিয়ে যায়।

অভিযোগ প্রসঙ্গে শশীভূষণ থানার ওসি রফিকুল ইসলাম জানান, ঘটনাস্থলে আটক ২ পুলিশ সদস্য মাদক অভিযানে আনজুরহাট এলাকায় যান। সেখানে গেলে রসুলপুর ইউনিয়নের পূর্ব পরিচিত যুবক লিমনের সাথে তাদের দেখা হয়। লিমনের নিমন্ত্রণে পুলিশ সদস্যরা চা খাওয়ার জন্য ওই বাসায় যান। কিন্তু যুবক লিমনের সাথে ওই বাসার কলেজ পড়ুয়া মেয়ের সাথে প্রেম গঠিত বিষয় ছিলো ওই সূত্র ধরেই তারা ওই বাসায় যান। যাকে কেন্দ্র করে অনাকাংক্ষিত ঘটনা ঘটেছে। বিষয়টি আমি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করেছি। গৃহকর্ত্রীর দায়ের করা অভিযোগটি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।
ভিন্নবার্তা ডটকম/এসএস

আরো পড়ুন

মাসিক আর্কাইভ

© All rights reserved © 2021 vinnabarta.com
Customized By Design Host BD