শিরোনাম

ভাতিজির হাত-পা বেঁধে ব্লেড দিয়ে রক্তাক্ত, চাচা গ্রেপ্তার

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি :

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় শান্তা আক্তার (২৫) নামে এক নারীকে হাত-পা বেঁধে শরীরের বিভিন্নস্থানে ব্লেড দিয়ে নির্যাতনকারী চাচা আলী মিয়াকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার রাতে সদর উপজেলার সুলতানপুর ইউনিয়নের শিলাউর গ্রাম থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আবদুর রহিম জানান, নির্যাতনের ঘটনায় শান্তার মা রৌশনা আক্তার বাদী হয়ে তিন চাচা হুমায়ূন মিয়া, আলী মিয়া ও রতন মিয়ার বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের করেন। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে আলী মিয়াকে গ্রেপ্তার করে বুধবার সকালে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

আহত শান্তা আক্তার সুলতানপুর ইউনিয়নের শিলাউর গ্রামের আলগাবাড়ির আইয়ুব মিয়ার মেয়ে ও একই গ্রামের পাশাপাশি বাড়ির রাজমিস্ত্রী রাসেল মিয়ার স্ত্রী। গত কয়েক দিন আগে শান্তার ছেলের সাথে চাচা হুমায়ূন মিয়ার ছেলের ঝগড়া হয়। এ নিয়ে হুমায়ূন মিয়া শান্তাকে গালাগাল করে দেখে নেওয়ার হুমকি দেন।

গত রবিবার সন্ধ্যায় শান্তা আক্তার ডাক্তার দেখাতে ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরে আসার জন্য বাড়ি থেকে বের হলে চাচা হুমায়ূন মিয়া মুখোশপড়া কয়েকজন সহযোগী নিয়ে শান্তাকে আটক করে তার হাত-পা বেঁধে ফেলে। পরে শান্তার শরীরের বিভিন্ন স্থানে ব্লেড দিয়ে জখম করে। পরে আহত শান্তাকে উদ্ধার করে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে নেওয়া হয়।
ভিন্নবার্তা ডটকম/এসএস

আরো পড়ুুন