শিরোনাম

বিনা চিকিৎসায় মালায়েশি থেকে লাশ হয়ে ফিরলো সাইদুল

মির্জা হুমায়ুন, শাহজাদপুর( সিরাজগঞ্জ)

ভাগ্যের নির্মম পরিহাস পরিবারের স্বচ্ছতার জন্যে ২০১৪ সালে মালয়েশিয়া পাড়ি জমান, সিরাজগঞ্জে শাহজাদপুর উপজেলা খুকনী নতুন পাড়া গ্রামের জিলহজ মন্ডলের নাতি, ও মোঃ আব্দুল আউয়ালের ছেলে সাইদুল ইসলাম (২৬), সে ছিল সবার বড় সন্তান , সে পরিবারের একমাত্র উপার্জনকারী ব্যক্তি ছিল। সাইদুল মালায়েশিয়া তোজোটিয় ইম্পিয়ান বিলাস মনোফ কিয়ারা কর্মরত ছিল,

পরিবার সূত্রে জানা যায়, ৬ জানুয়ারি অতিরিক্ত খাওয়ার পর গ্যাস ফর্ম করে, পরে জানা যায় সে স্টোক করেছিল, সুদুর মালায়েশিয়া থেকে বাবাকে ফোন করে বলে, বাবা আমার খুব কষ্ট হচ্ছে কেউ যদি আমাকে হাসপাতালে নিয়ে চিকিৎসা করাতো তাহলে আমি সুস্থ হয়ে যেতাম , মৃত্যুর আগে বাবা মাকে ইমোতে অসংখ্য ভোয়েস পাঠায়, ফোন করে বলে, আমাকে টাকা পাঠাও আমি বাংলাদেশে আসবো, ছেলের যন্ত্রনা কষ্ট শুনতে পেরে বাবা ৬০০০০ টাকা পাঠায়, টাকা পেয়ে বিমানের টিকিট করে ১৩ তারিখে ফ্লাইট ছিল, ভাগ্যের নির্মম পরিহাস ৯ তারিখে মৃত্যুবরণ করে, পরে কারখানা থেকে বের করে খোলা জায়গায় ফেলে রাখা হয়।

কারখানা থেকে অস্বীকার করা হয় সাইদুল এখানে চাকরি করেনি। শনিবার ভোরে গ্রামের বাড়িতে সাইদুলের লাশ বাড়ি এসে পৌছালে এলাকাজুড়ে শোকের ছায়া নেমে আসে। বাবা-মায়ের আকুতি, আমার মতো যেন কারো বিনা চিকিৎসায় সন্তানহারা না হতে হয়। মালয়েশিয়াতে আত্মীয়-স্বজন থাকা সত্ত্বেও কোম্পানির চাকুরী হারানোর ভয়ে কেউ কাছে আসতে পারেনি।

ভিন্নবার্তা/এমএসআই

আরো পড়ুুন