শিরোনাম

বান্দরবান ছাড়ছেন পর্যটকরা

ভিন্নবার্তা, বান্দরবান :

করোনাভাইরাস প্রতিরোধে প্রশাসনের নিষেধাজ্ঞায় বান্দরবান ছাড়ছেন দেশি-বিদেশি পর্যটকরা। বৃহস্পতিবার সকাল থেকেই আবাসিক হোটেল, মোটেল, রিসোর্ট, গেস্টহাউসগুলো ছেড়ে নিজ নিজ গন্তব্যে ফিরছেন ভ্রমণে আসা পর্যটকরা।

জেলা প্রশাসক মো. দাউদুল ইসলাম বলেন, করোনাভাইরাসের সংক্রামক ঠেকাতে পর্যটকদের ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে। একই সঙ্গে সব ধরনের বিনোদনকেন্দ্রেও লোকসমাগম বন্ধ রাখতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। বৃহস্পতিবার থেকে এ নিষেধাজ্ঞা পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত বলবৎ থাকবে। পর্যটনশিল্পের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট সবাইকে নিষেধাজ্ঞার বিষয়টি জানানো হয়েছে।

সকালে প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের লীলাভূমি বান্দরবানের অন্যতম দর্শনীয় স্থান নীলাচল, মেঘলা, চিম্বুক, নীলদিগন্ত, স্বর্ণমন্দির, শৈলপ্রপাত, প্রান্তিকলেক, নীলগিরিসহ ট্যুরিস্ট স্পটগুলোতে কোনো ভ্রমণপিপাসু পর্যটকের উপস্থিতি দেখা যায়নি।

জেলার দুর্গমাঞ্চলের দর্শনীয় স্থান বগালেক, ক্যাওক্রাডং, দামতোয়া ঝর্ণা, নাফাকুফ, বড়পাথর, রেমাক্রী, দেবতা কুম, জাদিপাই ঝর্ণা, রিজুক ঝর্ণাসহ পাহাড়ের আকর্ষণীয় ট্যুরিস্ট স্পটগুলোতে ভ্রমণে যাওয়া পর্যটকরাও বান্দরবান ছাড়ছেন বলে জানিয়েছেন ট্যুরিস্ট গাইডরা।

বান্দরবানের আবাসিক হোটেল মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম বলেন, করোনাভাইরাস বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়ার খবরে পর্যটকের আগমন অনেকটাই কমে গিয়েছিল। তার পরও দেশে করোনাভাইরাসের সংক্রামক দেখা দেয়ায় প্রশাসনের নিষেধাজ্ঞায় পর্যটকদের বান্দরবান ছেড়ে যাওয়ার কথা বলা হয়েছে।

নিষেধাজ্ঞায় আবাসিক হোটেলগুলোতে সব ধরনের বুকিং বাতিল করা হয়েছে। সংকট দীর্ঘমেয়াদি হলে পর্যটনশিল্পের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট এই অঞ্চলের অর্থনৈতিক চাকাটি অচল হয়ে পড়বে। ধস নামবে পর্যটনশিল্পে।

ট্যুরিস্ট জিপ-মাইক্রোবাস সমিতির নেতা মোহাম্মদ কামাল বলেন, ভ্রমণে আসা পর্যটকরা বান্দরবান ছেড়ে যাচ্ছেন। অগ্রিম বুকিং নেয়া পর্যটকদের ভাড়া বাতিল করা হচ্ছে। পর্যটকরা না এলে প্রায় চার শতাধিক ট্যুরিস্ট গাড়ির শ্রমিকরা বেকার হয়ে পড়বেন। তার পরও দেশবাসীর স্বার্থে ভাইরাসের সংক্রামক রোধে প্রশাসনের নিষেধাজ্ঞায় সাধুবাদ জানাচ্ছি।
ভিন্নবার্তা/এসএস

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন
আরো পড়ুুন