1. [email protected] : admin : jashim sarkar
  2. [email protected] : admin_naim :
  3. [email protected] : admin_pial :
  4. [email protected] : admin : admin
  5. [email protected] : Rumana Jaman : Rumana Jaman
  6. [email protected] : Saidul Islam : Saidul Islam
ধোনির অবসর: একটি যুগের সমাপ্তি - |ভিন্নবার্তা
খেলা হলো না কাঙ্ক্ষিত ২০২০‘ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ

ধোনির অবসর: একটি যুগের সমাপ্তি

vinnabarta.com
  • প্রকাশ : সোমবার, ১৭ আগস্ট, ২০২০, ০৭:৩৩ pm

অনেকটা আচমকাই আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে বিদায় বলেছেন মাহেন্দ্র সিং ধোনি। গত শনিবার সন্ধ্যায় ইনস্টাগ্রামে অবসরের ঘোষণা দেন তিনি। ভারতের সফল অধিনায়কের অবসরের পর সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে চলছে নানা কানাঘুষা। কেউ কেউ বলছেন আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলেই ধোনির অবসরে যাওয়া উচিত ছিল। কেউ কেউ বলছেন, নির্বাচকরাতো অনেক আগে থেকেই ওয়ানডে স্কোয়াডে রাখেনি মাহিকে।
২০০৭ সালে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ দিয়ে শুরু, তারপর ২০১১ সালে সবচেয়ে আরাধ্য ওয়ানডে বিশ্বকাপ। দুই বছর পর (২০১৩) ভারত চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিও জেতে ধোনির অধীনে। শোকেসে আছে ২টি এশিয়া কাপও (২০১০ আর ২০১৬)। ধোনির অধীনে ভারতের এত এত সাফল্য এসেছে, সেগুলো বিস্তারিত লিখতে গেলেও মহাকাব্য হয়ে যাবে। শুধু ভারতেরই নয়, তিন তিনবার (২০০৯, ২০১০ এবং ২০১৩) আইসিসির বিশ্ব টেস্ট একাদশেরও নেতৃত্ব দিয়েছেন ধোনি। আইসিসির বিশ্ব ওয়ানডে একাদশে রেকর্ড ৮ বার সুযোগ পাওয়া খেলোয়াড় ধোনি, এর মধ্যে আবার ৫ বার ছিলেন অধিনায়ক। শুধু ওয়ানডে আর টি-টোয়েন্টিই নয়, ধোনির নেতৃত্বে ২০০৯ সালের ডিসেম্বর থেকে ২০১১ সালের জুন পর্যন্ত টেস্ট র‌্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষে উঠেছিল ভারত।
গত বছরের বিশ্বকাপের পরে টিম ইন্ডিয়ার জার্সিতে আর দেখা যায়নি মাহেন্দ্র সিং ধোনিকে। শনিবার আইপিএল প্র্যাকটিস শুরু করার পর আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসর নেয়ার ঘোষণা দেন ৩৮ বছর বয়সী এই ভারতীয় ক্রিকেটার। সেই সঙ্গে শেষ হলো ভারতীয় ক্রিকেটে ধোনি যুগের।
সৌরভ গাঙ্গুলি বলেন, ‘এটি একটি যুগের সমাপ্তি। দেশ ও বিশ্ব ক্রিকেটে এক মহান খেলোয়াড়। ধোনির নেতৃত্বের গুণাবলি এমন কিছু ছিল, বিশেষ করে সংক্ষিপ্ত ফরমেটে, যা অন্যদের থেকে আলাদা। প্রথম দিকে ওয়ান ডে ক্রিকেটে ধোনির ব্যাটিং বিশ্বকে তাক লাগিয়ে দিয়েছিল। ওর স্বভাব এবং নিখুঁত স্বাভাবিকতা দারুণ। তবে প্রতিটি ভালো জিনিস একদিন শেষ হয়। এটি ছিল একেবারে উজ্জ্বল।’
২০০৪ সালে বাংলাদেশের বিপক্ষে সাবেক ভারতীয় অধিনায়ক ও বর্তমান ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ডের (বিসিসিআই) প্রেসিডেন্ট সৌরভ গাঙ্গুলির অধীনে ওয়ানডে অভিষেক হয় ধোনির। ২০১৯ বিশ্বকাপে ধোনিকে সর্বশেষ ভারতের জাতীয় দলের জার্সিতে খেলতে দেখা যায়। সেবার ওল্ড ট্রাফোর্ডে অনুষ্ঠিত সেমিফাইনালে আসরের ফাইনালিস্ট নিউজিল্যান্ডের কাছে হেরে বিদায় নেয় টুর্নামেন্টের অন্যতম ফেভারিট ভারত। ওই ম্যাচে ৭২ বলে ৫০ রান আসে ধোনির ব্যাট থেকে। মূলত সেখান থেকেই ধোনির অবসরের গুঞ্জন শুরু হয়। এরপর থেকে তাকে জাতীয় দলে খেলতেও দেখা যায়নি। এতদিন পর সেই গুঞ্জনের ইতি টেনে বিদায় বলে দিলেন তিনি।
ব্যাটসম্যান হিসেবে ৩ ফরমেটের মধ্যে ধোনি সবচেয়ে সফল ছিলেন ওয়ানডেতে। পঞ্চাশের উপর গড়, ১০ হাজারের উপর রান (১০৭৭৭)। ৩৫০ ওয়ানডেতে ১০টি সেঞ্চুরির সঙ্গে ৭৩টি হাফসেঞ্চুরির মালিক তিনি। ইতিহাসের সর্বকালের সেরা ফিনিশার হিসেবে পরিচিতিটা হয়ে গেছে তাতেই। উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান হিসেবে অন্যতম সফলদের একজন।
ভারতের হয়ে ১০০ টেস্ট খেলা হয়নি ধোনির। তবে ৯০ টেস্টে পরিসংখ্যান মন্দ ছিল না, ৬ সেঞ্চুরি ও ৩৩ হাফসেঞ্চুরিতে ৩৮.০৯ গড়ে ৪৮৭৬ রান ধোনির, সর্বোচ্চ ২২৪। সেঞ্চুরি ছোঁয়ার সুযোগ ছিল টি-টোয়েন্টিতেও। তবে ৯৮ ম্যাচেই থামল ক্যারিয়ার। টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটেও ওয়ানডের মতো ঈর্ষণীয় সাফল্য। ৩৭.৬০ গড়ে ১৬১৭ রান সদ্য সাবেক উইকেটরক্ষক এই ব্যাটসম্যানের। টেস্টে ভারতকে সবচেয়ে বেশি ম্যাচে (৬০) নেতৃত্ব দেয়া অধিনায়ক ধোনি। তার অধীনে ভারত জিতেছে ২৭টি টেস্ট, হেরেছে ১৮টি ও ড্র ১৫টি। বিরাট কোহলি নেতৃত্বে আসার আগে ভারতকে সবচেয়ে বেশি টেস্ট জয় এনে দেয়া অধিনায়ক ছিলেন ধোনিই। ৩৩ জয় নিয়ে এখন কোহলি উপরে উঠে গেছেন।
তবে ওয়ানডে আর টি-টোয়েন্টিতে ভারতকে সবচেয়ে বেশি জয় এনে দেয়ার রেকর্ডে ধোনির ধারে-কাছে নেই ভারতের কোনো অধিনায়ক। ২০০ ওয়ানডেতে নেতৃত্ব দিয়ে ভারতকে ১১০টিতেই জিতিয়েছেন তিনি। টি-টোয়েন্টিতে ৭২ ম্যাচে জয় ৪১টি। ধোনির ইচ্ছে ছিল অস্ট্রেলিয়ায় অনুষ্ঠিত টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ খেলে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে গুডবাই জানাবেন। করোনার কারণে ২০২০ সালের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ পিছিয়ে যাওয়ায় এবং ভারতীয় নির্বাচকরা তাকে ইদানীং উইকেটের পেছনে পছন্দ না করে তরুণদের সুযোগ দেয়ায় আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে বিদায় জানান মাহি। শনিবার স্থানীয় সময় রাত সাড়ে ৭টায় ইনস্টাগ্রামে একটি ভিডিও পোস্ট করে ৩৯ বছর বয়সী এই ক্রিকেটার ক্যাপশনে লিখেছেন, ‘এতদিন আমাকে সমর্থন ও ভালোবাসা দিয়ে যাওয়ার জন্য সবাইকে ধন্যবাদ। ৭টা ৩০ মিনিট হতে আমাকে অবসরপ্রাপ্ত হিসেবে গণ্য করুন।’

আরো পড়ুন

মাসিক আর্কাইভ

© All rights reserved © 2021 vinnabarta.com
Customized By Design Host BD