1. [email protected] : admin : jashim sarkar
  2. [email protected] : admin_naim :
  3. [email protected] : admin_pial :
  4. [email protected] : admin : admin
  5. [email protected] : Rumana Jaman : Rumana Jaman
  6. [email protected] : Saidul Islam : Saidul Islam
ডিএনসিসি মার্কেটকে নগর হাসপাতাল করা হচ্ছে |ভিন্নবার্তা

ডিএনসিসি মার্কেটকে নগর হাসপাতাল করা হচ্ছে

vinnabarta.com
  • প্রকাশ : রবিবার, ৯ অগাস্ট, ২০২০, ০২:৩৬ অপরাহ্ন

রাজধানীর মহাখালীতে অবস্থিত ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মার্কেটকে ৫০০ বেডের আধুনিক হাসপাতাল করার পরিকল্পনার কথা জানিয়েছেন মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম।

তিনি বলেন, ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনে কোনো আরবান হাসপাতাল নেই। তাই এটাকে আমরা আধুনিক আরবান বা নগর হাসপাতাল করতে চাই। এজন্য তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাসহ সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে আলাপ করবেন বলেও জানান।

রোববার দুপুরে মহাখালী মার্কেটে অবস্থিত করোনা আইসোলেশন সেন্টারের কার্যক্রম পরিদর্শন শেষে মেয়র একথা বলেন।

আতিকুল ইসলাম বলেন, করোনার সংক্রমণ দেখা দেয়ার পর আমরা নাগরিক সেবা নিশ্চিত করতে দ্রুত মহাখালীর এ মার্কেটটিকে করোনার আইসোলেশন সেন্টার হিসেবে ঘোষণা দিয়ে কার্যক্রম শুরু করি। এরপর আমরা এখানে করোনার নমুনা সংগ্রহের জন্য বুথ স্থাপনের ব্যবস্থা করি। এর ফলে আমরা দেখেছি অসংখ্য নাগরিক এর সুফল পেয়েছে। তাই আমরা চাচ্ছি করোনার সংকট কেটে গেলে আমরা এটিকে হাসপাতাল বানানোর পরিকল্পনা গ্রহণ করেছি।

তিনি আরও বলেন, আমাদের সংস্থার আওতাধীন নাগরিকদের জন্য কোনো নগর হাসপাতাল নেই। আমরা দীর্ঘদিন ধরে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি একটা হাসপাতাল নগরবাসীর জন্য উপহার দিতে। তাই আমরা মনে করি এখনই সময় সে চেষ্টাকে বাস্তবে রূপ দেয়ার। আমাদের এ সেন্টারটিতে ইতোমধ্যে ৬ তলায় ২৫টি আইসিইউ বেড রয়েছে ইংল্যান্ড থেকে আমদানিকৃত। খুবই অত্যাধুনিক। আমরা অনেকেই এই করোনাকালে উন্নত চিকিৎসার জন্য সিএমএইচে সুযোগ না পেলেও সেখানকার চিকিৎসকরা আমাদের এ সেন্টারে রোগীদের চিকিৎসা দিয়েছে। তারা বলেছে এটাতে কমপক্ষে ৫০০ বেডের অত্যাধুনিক মানসম্মত হাসপাতাল বানানো সম্ভব। তাই আমরা খুব শীঘ্রই এটিকে হাসপাতাল বানাতে স্থাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে আলাপ করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবো। এ বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাসহ সংশ্লিষ্টদের সঙ্গেও আলাপ করবেন বলে জানান মেয়র আতিকুল ইসলাম।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, ডিএনসিসির প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা বিগ্রেডিয়ার জেনারেল মোমিনুর রহমান মামুন প্রমুখ।

উল্লেখ্য, ডিএনসিসি মার্কেটে ষষ্ঠ তলায় বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার অর্থায়নে ও স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের তত্ত্বাবধানে ৫০টি আইসিইউ শয্যাসহ ৩০০ শয্যার একটি বিশেষায়িত হাসপাতাল স্থাপন করার পরিকল্পনা নেয়া হয়েছিল গত মার্চে। এরপর সেখানে ইতোমধ্যে ২৫টি আইসিইউ বেড স্থাপন করে সিএমএইচ হাসপাতাল চিকিৎসা সেবা চালিয়ে আসছিল।

২০১৩ সালে নির্মাণকাজ শেষ হলেও ব্যবসায়ীদের বাধার মুখে চালু হয়নি মহাখালীতে নির্মিত মহাখালী ডিএনসিসি মার্কেট। তাই এবার করোনায় আক্রান্তদের চিকিৎসায় এ মার্কেটটিকেই রূপান্তরিত করা হয়। কারওয়ান বাজারের ব্যবসায়ীদের কাছে স্থানান্তরের উদ্দেশ্যে এ মার্কেটটি করা হয়। তবে কয়েক দফা বিজ্ঞপ্তি দিয়েও পাওয়া যায়নি দোকান বরাদ্দের আবেদন। যে কয়েকটি পাওয়া গেছে, তাও মোট দোকানের তুলনায় অপ্রতুল।

ফলে ছয় বছর ধরে পড়ে ছিল ৭০ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত মার্কেটটি। ২০১৭ সালে এই ডিএনসিসি মার্কেটে ৫০ জন নারী উদ্যোক্তা দিয়ে উইমেন হলিডে মার্কেট চালু করেন প্রয়াত মেয়র আনিসুল হক। তবে ক্রেতাশূন্য থাকায় বর্তমানে সেটিও নেই।

ডিএনসিসির মালিকানাধীন ২১ বিঘা ১১ কাঠা জমির ওপর মার্কেটটি নির্মাণ করা হয়। এতে রয়েছে গাড়ি পার্কিং ও ময়লার ডাম্পিংয়ের স্থান, কসাইখানা, লিফট ও জেনারেটর। দোকান রয়েছে ১ হাজার ১৬৩টি। এর মধ্যে ৩৬০টি কারওয়ান বাজারের ব্যবসায়ীদের জন্য বরাদ্দ। বাকি ৮০৩টি দোকান লটারির মাধ্যমে বরাদ্দ দেয়ার কথা।

মার্কেটটির বেজমেন্টে পাইকারি কাঁচামালের বাজার। নিচতলায় মাছ-মাংস-মুরগিসহ কাঁচাবাজার। দ্বিতীয় ও তৃতীয় তলায় তৈরি পোশাক, চতুর্থ ও পঞ্চম তলায় ইলেকট্রনিক সামগ্রী এবং ষষ্ঠ তলা ফুডকোর্টের জন্য নির্ধারিত।

ভিন্নবার্তা/এমএসআই

আরো পড়ুন

মাসিক আর্কাইভ

© All rights reserved © 2021 vinnabarta.com
Customized By Design Host BD