শিরোনাম

গাইবান্ধায় পুলিশ-র‍্যাবের সঙ্গে এলাকাবাসীর সংঘর্ষ

ভিন্নবার্তা ডেস্ক:

গাইবান্ধা সদর উপজেলার পৌর নির্বাচনে একটি কেন্দ্রের ব্যালট পেপারসহ নির্বাচনী সরঞ্জামাদি আটকে দেয়ার চেষ্টা করেছে এলাকাবাসী। পরে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সঙ্গে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে তারা। হামলাকারীরা পুলিশের একটি গাড়িতে আগুন লাগিয়ে দিয়ে ম্যাজিস্ট্রেট ও র‍্যাবের আরও তিনটি গাড়ি ভাঙচুর করে।

এ ঘটনায় র‌্যাব, পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিস কর্মীসহ অন্তত ৯ জন আহত হয়েছেন। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে রাবার বুলেট নিক্ষেপ করা হয়।

শনিবার (১৬ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় উপজেলার ৯ নম্বর ওয়ার্ডের পূর্ব কোমরনই কেন্দ্রে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

বিভিন্ন সূত্রে জানা যায়, গাইবান্ধা পৌরসভার পূর্ব কোমরনই সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রের ফলাফল না দিয়ে ব্যালট পেপার নির্বাচন অফিসে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে— এমন খবরের ভিত্তিতে উত্তেজিত জনতা নির্বাচনী সরঞ্জামাদি আটকে দেয়। একপর্যায়ে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সঙ্গে উত্তেজিত জনতার সন্ধ্যা ৬টা থেকে দুই ঘণ্টাব্যাপী ধাওয়া-পাল্টাধাওয়া, ইটপাটকেল নিক্ষেপের ঘটনা ঘটে।

এসময় পুলিশের একটি গাড়িতে আগুন দেয় এবং র‌্যাবের দুটি, পুলিশের একটি ও জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটের একটি গাড়ি ভাঙচুর করে।

সংঘর্ষের বিষয়টি নিশ্চিত করেন গাইবান্ধা পুলিশ সুপার (এসপি) তৌহিদুল ইসলাম।

তিনি জানান, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী অন্তত ৫০ রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছোড়ে ও বেশ কিছু রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে। এসময় একজন পুলিশ সদস্য, একজন ফায়ার সার্ভিস কর্মী ও দুই র‌্যাব সদস্য এবং পাঁচজন এলাকাবাসী আহত হন। পরে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এনে ব্যালট পেপারসহ নির্বাচনের দায়িক্তরত কর্মকর্তাদের উদ্ধার করা হয়।

ভিন্নবার্তা ডটকম/এন

আরো পড়ুুন