1. admin-1@vinnabarta.com : admin : admin
  2. admin-2@vinnabarta.com : Rumana Jaman : Rumana Jaman
  3. admin-3@vinnabarta.com : Saidul Islam : Saidul Islam
  4. bddesignhost@gmail.com : admin : jashim sarkar
  5. vinnabarta@gmail.com : admin_naim :
  6. admin_pial@vinnabarta.com : admin_pial :
গোলটেবিল আলোচনায় বক্তারা

‘গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের ভূমিকা প্রশংসার যোগ্য’

ভিন্নবার্তা প্রতিবেদক
  • প্রকাশের সময় : সোমবার, ২৮ নভেম্বর, ২০২২ ৬:১২ pm

বাংলাদেশে গণতন্ত্রের লেশমাত্র নেই বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন। তিনি বলেন গণতন্ত্রহীন এ রাষ্ট্রে গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের বিকল্প নেই। অগণতান্ত্রিক সরকারের কারণে মানবাধিকারহীনতা এখন বাংলাদেশের সংস্কৃতিতে পরিণত হয়েছে। জাতিসংঘের মানবাধিকার সংস্থা এসব বিষয়ে তদন্ত করতে চাইলেও সরকার তার অনুমতি দিচ্ছে না। সেনাবাহিনী, পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের উপর আন্তর্জাতিক নিষেধাজ্ঞা প্রমাণ করে এদেশের গণতন্ত্রহীনতা এবং মানবাধীকারহীনতা পরিস্থিতি কতটা শোচনীয়।

আজ (২৮ নভেম্বর) জাতীয় প্রেস ক্লাবে আয়োজিত “বাংলাদেশে গণতন্ত্র শক্তিশালীকরণ এবং আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের ভূমিকা” শীর্ষক গোলটেবিল আলোচনায় প্রধান অতিথি হিসেবে অংশ নিয়ে ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন এসব কথা বলেন। সাউথ এশিয়ান ইয়ুথ রিসার্চ সেন্টার এ গোলটেবিল আলোচনার আয়োজন করে। এতে সভাপতিত্ব করেন আয়োজক সংগঠনের চেয়ারম্যান সুমন হক।

সাবেক মন্ত্রী ড. খন্দকার মোশাররফ আরও বলেন, সারাবিশ্বের যে সকল রাষ্ট্র এবং সংগঠন মানবাধিকার এবং গণতন্ত্র নিয়ে সোচ্চার তারা এখন বাংলাদেশের পরিস্থিতি নিয়ে সজাগ। কিছুদিন আগেই আমেরিকা আন্তর্জাতিক গণতন্ত্র সম্মেলনে বাংলাদেশকে আমন্ত্রণ জানায়নি। সাম্প্রতিককালের জাপানের রাষ্ট্রদূতের ভোট পরিস্থিতি নিয়ে মন্তব্য প্রমাণ করে আওয়ামী লীগ সরকার প্রহসনের মাধ্যমে জোর করে ক্ষমতায় বসে আছে। আমাদের আভ্যন্তরিণ বিষয়ে আওয়ামী লীগ যাদের কাছে ধরনা দিয়ে গণতন্ত্রকে নস্যাত করার চেষ্টা করেছিল এখন সেই বিদেশী শক্তিসমূহ তাদের মুখোশ উন্মোচন করে দিচ্ছে। আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে বাংলাদেশের জনগণের ভোটাধিকার ফিরিয়ে দেয়ার নামে মানবাধিকার রক্ষার সহযোগী হিসেবে দেখে এদেশের মানুষ এখন আশাবাদী হয়ে উঠেছে।

গোলটেবিল আলোচনা সভায় অংশ নিয়ে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু বলেন, জাপান কর্তৃক আমাদের প্রধানমন্ত্রীর সফর স্থগিত হওয়ার ঘটনাটি অত্যন্ত লজ্জাজনক। তিনি আরও বলেন, এই সরকারের অধীনে কোন নির্বাচনে গেলে তা হবে আত্মহত্যার সামিল।

সাবেক রাষ্ট্রদূত সিরাজুল ইসলাম বলেন, ভারত কর্তৃক আমাদের জাতীয় নির্বাচনে যে অযাচিত হস্তক্ষেপ হয়েছিল তা মোটেও এদেশে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠায় সহায়তা করেনি। তিনি বলেন, জাপানের রাষ্ট্রদূতের সাম্প্রতিক মন্তব্য প্রমাণ করে এডিবি এবং আইএমএফ থেকে সরকার যে ঋণ আশা করছে তা বাধাগ্রস্থ হতে পারে। এদেশের মানুয়ের ভোটাধিকার ফিরিয়ে দিয়ে আন্তর্জাতিক সম্পর্কের ক্ষেত্রে বাংলাদেশের অবস্থান সুদৃঢ় করার জন্য তিনি যথাযথ কর্তৃপক্ষকে আহ্বান করেন।

‘আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় বাংলাদেশের গণতন্ত্রকে সুসংহত করতে যে ভূমিকা রাখছে তা যাতে সাম্রাজ্যবাদী এবং আধিপত্যবাদী না হয় সে বিষয়ে জনগণকে সজাগ থাকার আহ্বান জানান’ সাবেক কূটনীতিক সাকিব আলী । দুর্নীতি, সন্ত্রাস, গুম ও খুন পরিহার করে বাংলাদেশের মানুষের স্বার্থকে প্রাধান্য দিয়ে বর্তমান আওয়ামী লীগ সরকারকে জনগণমুখী হওয়ার আহ্বানও জানান তিনি।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শান্তি ও সংঘর্ষ অধ্যয়ন বিভাগের সাবেক চেয়ারম্যান ড. সাইফুদ্দিন আহমেদ বলেন, বাংলাদেশের মানুষ ভোট দেওয়ার দিনকে নিজেদের মর্যাদার দিন মনে করে। কিন্তু আজ এদেশের মানুষ সেই মর্যাদা হারিয়েছে। কেননা প্রহসনের মাধ্যমে আওয়ামী লীগ সরকার এবং আজ্ঞাবহ নির্বাচন কমিশন জনগণের ভোটাধিকার কেড়ে নিয়েছে। আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় নাগরিকদের এই মর্যাদা, ভোটাধিকারকে বিবেচনায় নিয়ে মানবাধিকার প্রতিষ্ঠায় এগিয়ে এসেছে – যা প্রশংসার যোগ্য।
ভিন্নবার্তা ডটকম/এন



আরো




মাসিক আর্কাইভ