1. admin-1@vinnabarta.com : admin : admin
  2. admin-2@vinnabarta.com : Rumana Jaman : Rumana Jaman
  3. admin-3@vinnabarta.com : Saidul Islam : Saidul Islam
  4. bddesignhost@gmail.com : admin : jashim sarkar
  5. newspost2@vinnabarta.com : ebrahim-News :
  6. vinnabarta@gmail.com : admin_naim :
  7. admin_pial@vinnabarta.com : admin_pial :
শিরোনাম :
২৬শে এপ্রিল থেকে শুরু হচ্ছে শার্ক ট্যাংক বাংলাদেশ রেলস্টেশনে বসেছে ভেন্ডিং মেশিন, যাত্রীরাই কাটবে নিজের টিকিট আওয়ামী লীগের শান্তি ও উন্নয়ন সমাবেশ শুক্রবার মিরপুর ঘুরে দেখলেন আইসিসির প্রতিনিধি দল উপজেলা পরিষদ নির্বাচন: সৈয়দপুরে ৬ চেয়ারম্যান প্রার্থীসহ ১৩ জনের মনোনয়নপত্র জমা বিশ্ব এখন হাতের মুঠোয়, এটাই শেখ হাসিনার স্মার্ট বাংলাদেশ-আসাদুজ্জামান নূর আমি তথ্য গোপন করায় নমিনেশন বাতিল হয়নি,এটা অনভিজ্ঞতা জনিত কারণে বাতিল ডোমারে বাড়ীর পাশে রেললাইনে কাটা পড়লো নেশাগ্রস্থ যুবক ভূট্টার খড় থেকে সাইলেজ (প্রাণি খাদ্য) তৈরীর প্রকল্প বাস্তবায়ন যুবদলের কেন্দ্রীয় কমিটি ভেঙে দেওয়ার দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল

করোনা লড়াইয়ে মিলছে আশার আলো

ভিন্নবার্তা প্রতিবেদক
  • প্রকাশের সময় : শুক্রবার, ১২ জুন, ২০২০ ১১:৪২ pm

আগামী মাস অর্থাৎ জুলাইয়ে শুরু হবে করোনা প্রতিষেধকের চূড়ান্ত বা ফাইনাল টেস্ট! এরপরই গবেষকরা নিশ্চিত হবেন, যে আদৌ মানবশরীরে এই প্রতিষেধক কাজ করছে কিনা। করোনা ভ্যাকসিন বানানোর প্রচেষ্টায় এখনও পর্যন্ত এগিয়ে রয়েছে মার্কিন যুক্ররাষ্ট্র। সে দেশের বায়োটেক সংস্থা মডার্না Moderna Inc.- এর তৈরি ভ্যাকসিনটি প্রথম ও দ্বিতীয় ট্রায়ালে সফল হয়ে তৃতীয় অর্থাৎ চূড়ান্ত ধাপে পরীক্ষার ছাড়পত্র পেয়েছে মার্কিন ওষুধ প্রশাসনের তরফ থেকে।

মডার্না Moderna Inc.- এর তরফে জানানো হয়েছে, ন্যাশনাল ইন্সটিউট অফ হেলথ-এর সঙ্গে যৌথ উদ্যোগে যে প্রতিষেধক বানানোর কাজ চলছে তা মার্কিন যুক্ররাষ্ট্রের ৩০,০০০ মানুষের ওপর পরীক্ষা করা হবে। কিছু সংখ্যক মানুষকে ‘রিয়েল শট’ দেওয়া হবে, কিছু সংখ্যককে ‘ডামি শট’, এরপর বৈজ্ঞানিকরা তুলনা করে দেখবেন কারা কম সময়ের মধ্যে করোনার মোকাবিলা করতে সক্ষম হচ্ছেন।

ন্যাশনাল ইন্সটিউট অফ হেলথ ও মডার্না-র তৈরি প্রতিষেধকে ভাইরাস নেই, করোনাভাইরাসের ওপর আচ্ছাদিত থাকা ‘স্পাইক’ প্রোটিনের জেনেটিক কোড ব্যবহৃত হয়েছে ভ্যাক্সিনের শটে। শরীরের কোষ ওই কোড ব্যবহার করে কিছু নিরীহ স্পাইক প্রোটিন উৎপাদন করে। এই প্রোটিনের সঙ্গে বিক্রিয়া করে শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বা ইমিউন সিস্টেম তৈরি থাকে পরবর্তীতে যদি ক্ষতিকারক স্পাইক প্রোটিন শরীরে থাকে, সেক্ষেত্রে যাতে ইমিউন সিস্টেম তার মোকাবিলা করতে পারে। সূত্র : নিউজ এইটটিন।



আরো




মাসিক আর্কাইভ