শিরোনাম

আশুলিয়ায় স্বামীকে আটকে রেখে নারী শ্রমিককে গণধর্ষণ, আটক ১

উপজেলা প্রতিবেদক, সাভার

সাভারের আশুলিয়ায় বকেয়া এক মাসের বাসা ভাড়া পরিশোধ করতে না পারায় স্বামীকে আটকে রেখে এক গার্মেন্ট শ্রমিক তরুনীকে (২৪) গণধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। এঘটনায় প্রধান অভিযুক্ত বাড়ির মালিক মো. কালামকে পুলিশ আটক করলেও পলাতক রয়েছে বাকীরা।

মঙ্গলবার (১৫ জানুয়ারি) দুপুরে আশুলিয়ার আশুলিয়ার পশ্চিম জামগড়া এলাকার ফকির বাড়ী থেকে অভিযুক্ত বাড়ির মালিক মো. কালামকে আটক করে পুলিশ। এর আগে সোমবার দিবাগত গভীর রাতে একই বাড়িতে এই ঘটনা ঘটে।

আটক পেশায় ফার্মেসী ব্যবসায়ী মো. কালাম (৪৫) আশুলিয়ার পশ্চিম জামগড়া এলাকার ফকির বাড়ির বাসিন্দা।

ভুক্তভোগী নারী শ্রমিকের অভিযোগ, তিনি পশ্চিম জামগড়া এলাকায় মো. কালামের বাড়ির একটি কক্ষে ভাড়া থেকে ডিইপিজেডের একটি পোশাক কারাখানায় কাজ করেন। গতকাল রাতে পরিবহন চালক স্বামী ও তিনি নিজ কক্ষেই ছিলেন। এসময় রাত ১২টার দিকে বাড়ির মালিক কালাম ও তার পাঁচ সঙ্গী নিয়ে বকেয়া ডিসেম্বরের মাসের ২ হাজার টাকা ভাড়ার জন্য তার কক্ষে আসে।

পরে কারখানায় তাদের বেতন পরিশোধ করা হয়নি বলে বাড়ির মালিককে জানান তিনি। কিন্তু মালিক কালামের সহযোগী দুই জন তার স্বামীকে পাশের কক্ষে আটকে রাখে। পরে জোরপূর্বক তার স্বর্ণের চেইন, চুরি, কানের দুল ও নাকের ফুল খুলে নেয় তারা।

তিনি আরো বলেন, এরপর তিন জন তার হাত-পা চেপে ধরে ও বাড়ির মালিক তাকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। বাকী তিনজন পরবর্তীতে ভোর ৪টা পর্যন্ত তাকে ধর্ষণ করে চলে যায়। পরে সকালে তিনি আশুলিয়া থানায় এসে অভিযোগ করেন।

এদিকে ঘটনার পরপর আশুলিয়া থানার উপ-পরিদর্শক সেলিম রেজা ঘটনাস্থল গিয়ে ধর্ষণের ঘটনায় অভিযুক্ত বাড়ির মালিক মো. কালামকে আটক করেন। তবে বাকী অভিযুক্তদের আটক করতে পারেননি তিনি।

আশুলিয়া থানার উপ-পরিদর্শক সেলিম রেজা জানান, ভুক্তভোগী ওই নারী শ্রমিকের অভিযোগ পাওয়ার পরপরই অভিযুক্ত বাড়ির মালিক কালামকে আটক করা হয়েছে। এঘটনায় বাকী অভিযুক্তদের আটকের পাশাপাশি মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলেও জানান তিনি।

আইআই/শিরোনাম বিডি

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন
আরো পড়ুুন